দেহের বিষ দূর করতে ৪টি জাদুকরী জুস

সারাদিন বহু কাজে ব্যস্ত থাকলে বা গোটা রাত পার্টি করলে দেহের অভ্যন্তরে নানা গোলোযোগ দেখা দিতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, দেহে জমে যায় নানা বিষাক্ত উপাদান। এদের দূর করার উপায়ও রয়েছে। এখানে ৩টি জুসের রেসিপি জেনে নিন। দেহের যাবতীয় বিষাক্ত উপাদান দূর করে দেবে এগুলো।
দেহের বিষ দূর করতে ৪টি জাদুকরী জুস

১. গ্রিন স্মুথি : এটা স্বাস্থ্যকর ফ্যাট, কার্ব, ফাইবার, মিনারেল এবং প্রোটিনে পূর্ণ এক পানীয়। আর বিষাক্ত উপাদান বের করতে দারুণ কার্যকর।
উপাদান : টাটকা পালং শাকের ১০-১২টি পাতা, ১/২টি অ্যাভোকাডো, ১টি ছোটো ঠাণ্ডা কলা এবং ১৫০ গ্রাম দই।
প্রক্রিয়া : এ সব উপাদান ব্লেন্ডার মেশিনে পিষে ফেলুন। এতে যতটুকু পানি প্রয়োজন হয় দিন। এবার খেয়ে ফেলুন।

২. ফ্রুট জিঞ্জার স্মুথি : এটা দারুণ পুষ্টিকর এবং বিষাক্ত উপাদান দূর করতে ওস্তাদ। এটা প্রোটিনের একটি আদর্শ পানীয় যাতে অন্যান্য স্বাস্থ্যকর উপাদান রয়েছে।
উপাদান : ১ কাপ ফ্রেশ কমলার জুস, ১ টেবিল চামচ পানিতে ভিজিয়ে রাখা ১ টেবিল চামচ চিয়া সিড, ঠাণ্ডা করা ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল অথবা বাদামের বাটার, ১ টেবিল চামচ আদা কুচি এবং ১৫০ গ্রাম দই।
প্রক্রিয়া : সব উপাদান ব্লেন্ড করুন। ব্লেন্ডারে ২-৩টি বরফের টুকরা দিয়ে নিন। এগুলো কমলার জুসের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। এবার উপভোগ করুন।

৩. শসার সবুজ স্মুথি : শসা এমনিতেই স্বাস্থ্যকর এবং সুস্বাদু সবজি। এখানে যে স্মুথি বানানো শিখবেন, তা হবে বিষাক্ত উপাদান দূরীকরণে দারুণ কার্যকর।
যা লাগবে : একটি শসার চার ভাগের এক ভাগ, কয়েকটি পালং শাকের পাতা, অর্ধেক অ্যাভোকাডো, ধনে পাতা, মিন্ট জাতীয় উদ্ভিদ, এক কাপ পানি এবং আধা কাপ আপেল বা লেবুর রস।
প্রক্রিয়া : সবকিছু ব্লেন্ড করুন। এবার উপভোগ করুন।
দেহের বিষ দূর করতে ৪টি জাদুকরী জুস

৪. ট্যাঙ্গি ক্যারোট স্মুথি : বেটা ক্যারোটিনের দারুণ উৎস এই স্মুথি। স্বাস্থ্যকর নানা উপাদান দেওয়ার পাশাপাশি বিষাক্ত উপাদান দূর করে।
উপাদান : ৫টি টাটকা গাঁজর, মিন্ট পাতা, ১ ইঞ্চি পরিমাণ আদা, আধা চামচ লেবুর রস।