নারী মানেই তো সুন্দর : আরিফিন শুভ

ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পাচ্ছে জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত সিনেমা ‘ভালো থেকো’। এতে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ। কলকাতার ‘বালিঘর’ সিনেমাও কাজ করছেন। নানা প্রসঙ্গে কথা বললেন প্রতিবেদক মাসউদ আহমাদ এর সঙ্গে…

আপনার নতুন সিনেমা ‘ভালো থেকো’ফেব্রুয়ারিতে আসছে…
দর্শক ভালো গল্পের একটি সিনেমা দেখতে পারবেন। এতে কাজ করে ভালো ভীষণ লেগেছে। আর রাজু স্যারের সঙ্গে কাজের অনুভূতি সবসময়ই ভালো। তার কাছে শেখার সুযোগটা বেশি পাই। সিনেমাটি একই সঙ্গে প্রেমের এবং মানবতার। মৌলিক গল্পের ছবি ‘ভালো থেকো’। আমার সঙ্গে অভিনয় করেছেন তানহা তাসনিয়া। আশা করছি দর্শকের ভালো লাগবে।

প্রত্যাশা কেমন?
নতুন বছরে এটাই আমার প্রথম ছবি। ‘ভালো থাকব, ভালো রাখব -নতুন বছরে এটাই আমার মন্ত্র। তো সেদিক থেকে বলতে পারি, ভালো থেকো দেখে দর্শক হতাশ হবেন না।

কলকাতার অরিন্দম শীলের ‘বালিঘর’ সিনেমায় কাজ করছেন?
‘বালিঘর’ ছবিতে আমার কাজ করার পেছনে দুটি কারণ রয়েছে। একটি হলো এর গল্প শুনে আমার খুব ভালো লেগেছে। আর অন্যটি হলো এর পরিচালক। এই ছবিতে দুটি দিকই পেয়েছি। আমাদের প্রতিদিনের বাস্তব জীবনের যেসব সম্পর্ক স্বামী- স্ত্রী, বন্ধুবান্ধবÑএর বাইরেও কিন্তু আরো অনেক সম্পর্ক আছে। তেমন সম্পর্ক নিয়েই ‘বালিঘর’।

কাজটি নিঃসন্দেহে ভালো কিছু হবে বলে আমার বিশ্বাস। অভিনয় যেহেতু আমার জীবিকা, তাই স্রোতের সাথে চলে কাজ করায় আমি বিশ্বাস করি না। আমি মানের দিকটি সব সময়ই সামনে রাখি। এই কাজটি আমার জন্য আরেকটি মাইলফলক হতে পারে। দেখা যাক।

অরিন্দম শীল আপনার সম্পর্কে বলেছেন ভালো চলচ্চিত্র করতে গেলে ভালো শিল্পী দরকার। শুভ অনেক উঁচু মানের শিল্পী’…

তিনি যে মন্তব্যটি করেছেন, এটা আমার সৌভাগ্য। আমার কিছু তিনি কাজ দেখেছেন। পরে যোগাযোগ করেছেন। তার সঙ্গে কথাবার্তা হলো। কথা বলে তিনি জানালেন যে, তিনি মনস্থির করে জানালেন ‘বালিঘর’-এর মধুময় চরিত্রটি শুভ ছাড়া আর কেউ হতে পারেন না। আমাকে তিনি নির্বাচন করেছেন, আমি আনন্দিত এটুকু বলতে পারি।

আর একটি নতুন ছবি ‘আহারে’তে কাজ করছেন, এটা নিয়ে বলুন?
রঞ্জন ঘোষের পরিচালনায় ‘আহারে’ সিনেমাটা একটু অন্যরকম ভাবনার। এতে আমার বিপরীতে অভিনয় করছেন কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। এ সিনেমার জন্য লুক সেটআপ এবং ওয়ার্কশপের কাজ করতে হবে। ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুটিং শুরু হবে। এটা রান্না বিষয়ক গল্পের ছবি। আমরা অনেক সময় কোনো-না-কোনোভাবে অস্বাস্থ্যকর খাবার খেয়ে ফেলি। লোভ সংবরণ করতে পারি না।

বিশেষ করে চকলেট আর আইসক্রিমের প্রতি লোভ থাকে আমাদের। যদিও এ খাবারগুলো টোটালি না খাওয়াটা আবার বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। আমরা চাইছি কন্ট্রোলে থেকে খেতে। কারণ ওই ধরনের খাবারগুলো সামনে পেলে আমাদের আসলে হুঁশ থাকে না। খাবারগুলো নিয়মিত খাওয়ার বদভ্যাসটা বদলাব আশা করি।

আপনি তো লাক্স-চ্যানেল আইয়ের সুন্দরী প্রতিযোগতার বিচারক হিসেবে কাজ করছেন?
নারী মানেই তো সুন্দর। আমি এভাবেই ভাবতে চাই। তবে এসবের সঙ্গে পেশাদারি, সিনসিয়ারিটি অনেক বড় ব্যাপার। প্রতিযোগিতায় যিনি শ্রেষ্ঠত্বের মুকুটজয়ী হবেন, তাকে প্রমাণ করতে হবে। আমি অপেক্ষা করছি, বাহ্যিক সৌন্দর্যের বাইরের কিছু দেখার জন্য, মানুষের যে মানবিক সৌন্দর্যের দিকগুলো আছে, তা তুলে ধরার চেষ্টা করব। এই সুন্দরী প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে থাকবেন মৌ আপু। আমার সবগুলো পর্বতে তো থাকা সম্ভব হবে না, টেলিভিশনে প্রচারিত চূড়ান্ত পর্বগুলোতে দায়িত্ব পালন করব আশা করছি।-সূত্র : পরিবর্তন