শাকিব খানের চরিত্র এত খারাপ জানতাম না’

শেষ সময়টা ঘনিয়ে আসছে। গত বছরের ২২ নভেম্বর অপুকে ডিভোর্স লেটার পাঠান শাকিব। আর তা পাঠানোর ৯০ দিন পর তালাক কার্যকর হয়ে যায়। আর সেই সময়টা শেষ হচ্ছে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি। এই দিনেই আনুষ্ঠানিক ভাবে তালাক হয়ে যাবে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের।

ডিএনসিসি প্রথম সালিশে অনুপস্থিত ছিলেন শাকিব। এরপর ১২ ফেব্রুয়ারি নতুন দিন নির্ধারণ করে সালিশির। আজ সোমবার সেই দিনটি। কিন্তু এবারও বৈঠকে হাজির হন নাই শাকিব খান।তাই অপু বিশ্বাস বলেন, ‘আমি ডিভোর্সের বিষয়টি মেনে নিয়েছি। পরিবারের বিষয়গুলা জনসম্মুখে আনা ঠিক নয়।

আমি আমার বাচ্চার মুখের দিকে তাকিয়ে সব সময় চেয়েছি বিষয়গুলো বাইরের মানুষ কম জানুক। তারপরও শাকিব খান বিষয়টিকে জনসম্মুখে নিয়ে এসেছেন।’এদিকে দেনমোহর প্রসঙ্গে অপু বলেন। শাকিব তার থেকে কাবিনের কাগজ ছিনিয়ে নিয়েছে।

তিনি জানতেন কাবিন এক কোটি সাত লাখ, এখন সেটা কিভাবে শুধু সাত লাখ টাকা হলো তিনি জানেন না।
অনেকটা ক্ষোভ নিয়ে অপু বলেন, আমি জানতাম শাকিব খানের চরিত্র খারাপ কিন্তু এত খারাপ সেটা জানতাম না। যে সব মেয়েদের সাথে তার ওঠা-বসা; আমি ভেবেছিলাম সন্তান হলে সে এই পথ থেকে সরে আসবে।

কিন্তু ঘটেছে তার উল্টো। তাকে ভালোবেসে আমি সব ছেড়েছি বিনিময়ে অসম্মান আর অবহেলা ছাড়া কিছুই পাইনি।