১৫ বছরের কিশোরকে যৌনতায় বাধ্য করলেন ‘আদর্শ মা’, অতঃপর…

সে নাকি একজন ‘আদর্শ মা’! তবু তার আচরণে প্রায় আত্মহত্যার পথে চলে গিয়েছিল ১৫ বছরের এক কিশোর। কাণ্ড গুরুতর। যুক্তরাজ্যের ওয়েলশ-এর বাসিন্দা ৪২ বছর বয়সি র‌্যাচেল মার্শালের বিরুদ্ধে এই মর্মে অভিযোগ আনা হয় যে, সে নাকি ওই

কিশোরের সঙ্গে যৌনতায় লিপ্ত হতো প্রতি সপ্তাহেই। ওয়েলশ-এর এক আদালতে তার বিরুদ্ধে আনা চার দফা অভিযোগগুলির মধ্যে এছাড়াও ছিল কিশোরটিকে হুমকি দেওয়া, তাকে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে ফেলা।

Loading...

কিশোরটির সঙ্গে প্রায়শই মিলিত হতো যৌবনের উপান্তবাসিনী এই মহিলা। কখনও মিলন হয়েছে র‌্যাচেলের বাড়িতে। তবে বেশিরভাগ সময়েই কিশোরটিকে নিয়ে র‌্যাচেল কোনও মনোরম জায়গায় ড্রাইভ করে যেত। সেখানে গাড়ির ভিতরেই সে উপগত হতো কিশোরটির সঙ্গে। এভাবেই কেটে যাচ্ছিল দিন। কিন্তু, বয়ঃসন্ধির স্বাভাবিক ধর্ম মেনেই কিশোরটির সঙ্গে তার সমবয়সি এক কিশোরীর রোম্যান্টিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। র‌্যাচেল এই ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে অশালীন মেসেজ করতে থাকে ছেলেটিকে।

এক সময়ে কিশোরটি র‌্যাচেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে চায়। তখন নকল সোশ্যাল মিডিয়া-প্রোফাইল থেকে সে তাকে ভয়ঙ্কর হুমকিপূর্ণ মেসেজ পাঠাতে শুরু করে। কিশোরটি বিপন্ন বোধ করতে শুরু করে। এবং এক সময়ে সে আত্মহত্যার চিন্তা শুরু করে। ঘটনা আদালত পর্যন্ত গড়ায়।

বিচারকালে বিচারক জানান, র‌্যাচেল এক সময়ে সচ্চরিত্রাই ছিলেন। কিন্তু ক্রমশ তার মধ্যে মনোবিকার দেখা দেয়। র‌্যাচেলের পক্ষের আইনজীবী জানান, র‌্যাচেল একজন ‘আদর্শ মা’। মনোবিকারের কারণেই এমনটা ঘটেছে। তিনি এখন এই ঘটনার জন্য অনুতপ্ত। বিচারে র‌্যাচেলকে ৪০ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। কিন্তু র‌্যাচেল এই মুহূর্তে সন্তানসম্ভবা। আদালত জানিয়েছে, তাঁর সন্তান জেলেই ভূমিষ্ঠ হবে এবং তার পরের ১৮ মাস তাঁর সঙ্গেই থাকবে। তার পরে শিশুটিকে আত্মীয়দের কাছে পাঠানো হবে।

আশ্চর্যের ব্যাপার, পুরো বিচারক্রিয়ার সময়‌ে, এমনকী সাজা ঘোষণার সময়েও র‌্যাচেল ছিল একান্তভাবেই ভাবলেশহীন।-এবেলা।

Random Posts

Leave a Reply