বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইডথ কিনল ভারতী এয়ারটেল

নিজেদের সংকট মেটাতে ভারতী এয়ারটেল বাংলাদেশ থেকে এক মাসের জন্য ৫০ জিবিপিএস ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ কিনে নিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে দেশের একমাত্র নিজস্ব ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ সরবরাহকারী বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কম্পানি লিমিটেডের (বিএসসিসিএল) সঙ্গে ভারতী

এয়ারটেলের চুক্তি হয়েছে।

Loading...

তবে এই ব্যান্ডউইডথ ভারতে ব্যবহার হবে নাকি বাংলাদেশের আইটিসি (ইন্টারন্যাশনাল টেরেস্ট্রিয়াল কেবল) অপারেটরদের কাছে তা বিক্রি করা হবে সে বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন…

এ বিষয়ে বিএসসিসিএলের পরিচালক মনোয়ার হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে গতকাল শনিবার তিনি বলেন, কক্সবাজার থেকে চেন্নাই পর্যন্ত রুটের ৫০ জিবিপিএস ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ ভারতী এয়ারটেলের কাছে বিক্রি করা হয়েছে।

দেশটির দুটি সাবমেরিন কেবল নেটওয়ার্ক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় বাংলাদেশেও এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এতে করে প্রায় এক সপ্তাহ ধরে ইন্টারনেটের গতি কমে গেছে। বিশেষ করে দেশের যেসব ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান আইটিসি অপারেটরদের ব্যান্ডউইডথের ওপর নির্ভরশীল তাদের গ্রাহকরা সংকটে পড়েছে। বাংলাদেশের পর্যাপ্ত ব্যান্ডউইডথ থাকলেও কম মূল্যের কারণে আইটিসি অপারেটররা মূলত ভারত থেকে ব্যান্ডউইডথ সংগ্রহ করে। এ বিষয়ে গত বুধবার কালের কণ্ঠে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

এ সম্পর্কে গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন বা আইএসপিএবির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত কয়েক দিনে বাংলাদেশে ব্যান্ডউইডথ সরবরাহকারী তিনটি সাবমেরিন কেবল কাটা পড়েছে বা সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। আর এ কারণেই ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা গতি কম পাচ্ছে। ইন্টারনেটের ধীরগতি আরো কয়েক দিন থাকতে পারে। তবে ২০ জানুয়ারির মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে। ওই সময় পর্যন্ত সব কেবলের মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণকাজ শেষ হবে।

গত মঙ্গলবার ভারতের টাটা ইনডিকম কেবল বা টিআইসি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর কয়েক দিন আগে কাটা পড়ে ভারতী এয়ারটেলের ‘আই ২ আই’ সাবমেরিন কেবল। আর গত মাসে সাইক্লোনে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ‘আইমিউই’ সাবমেরিন কেবল নেটওয়ার্ক।

এ বিষয়ে বিএসসিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমাদের সাবমেরিন কেবলে কোনো সংকট নেই এবং যাঁরা আমাদের ব্যান্ডউইডথ ব্যবহার করছেন তাঁরা স্বাভাবিক গতিই পাচ্ছেন।

Mybd24.com © 2017 Mybd24.com